Header Ads

বিস্ময়কর গাছ শিল্পের এক বিচিত্র বাগান !

পৃথিবীতে ব্যতিক্রমী মানুষের কোনও অভাব নেই। কেউ কাজকে স্বাভাবিকভাবে করতে ভালবাসেন আবার অনেকে একই কাজকে ভিন্ন ভাবে করে আনন্দ পান। অবশ্য পার্থক্য এই যে, সহজভাবে যারা কাজ করেন তাদের চেয়ে যারা ব্যতিক্রমী কাজ করেন তারা পৃথিবীতে বেশী স্মরণীয় হয়ে থাকেন। পৃথিবী ব্যাপী এই সমস্ত ব্যতিক্রমী কর্মের মানুষের মধ্যে একজন ছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এক্সেল এরল্যান্ডসন। তার কাজ গুলো মানুষকে বিস্মিত করেছে। তিনি মূলত মানুষকে বিস্মিত করেছেন তার শিল্পকর্ম দ্বারা।

গাছ নিয়ে অদ্ভুতসব শিল্পকর্ম করে তিনি বিস্মিত করেছেন বিশ্বের মানুষকেতিনি শিল্প কর্ম হিসেবে গাছকে বেছে নিয়েছেন এবং এই গাছ দ্বারা বিভিন্ন শিল্প কর্ম তৈরি করেছেন। মানুষের হৃৎপিণ্ডের মতো দেখতে গাছের কাণ্ড, মইয়ের মতো গাছ আবার কখনো কখনো বৃত্ত, রম্বস, বর্গক্ষেত্র প্রভৃতি জ্যামিতিক চিহ্ন ফুটিয়ে তুলেছেন তিনি গাছের মাধ্যমে

এরল্যান্ডসন ১৫ ডিসেম্বর ১৮৮৪ সালে সুইডেনে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম ছিল আলফ্রেড এরল্যান্ডসন ও মাতার নাম ক্রিস্টিনা লারসন। লুডইক ও এনথন নামে তার দুজন ভাই ও ইমা সাউনসন নামের এক বোন ছিল। ১৮৮৬ সালের দিকে তারা পরিবার সহ আমেরিকায় চলে আসে। প্রথম জীবনে এক্সেল কাঠের মেশিন প্রক্রিয়া করেন কিন্তু তার পিতা-মাতা তাকে একাকী ক্যালিফোর্নিয়াতে যেতে বাধা দিলে তার এই কাজ থেমে যায়। ১৯১৪ সালে তিনি লিউনা নামে এক মহিলাকে বিবাহ করেন। ১৯২৫ সালের দিকে তিনি সর্বপ্রথম গাছ গ্রাফটিংয়ের কাজ শুরু করেন। তিনি সেলফ গ্রাফটিংকে কাজে লাগিয়ে গাছের কিছু শৈল্পিক স্ট্রাকচার তৈরির সিদ্ধান্ত নেন। 


প্রাথমিক পর্যায়ে গাছ নিয়ে খুব সাধারণ ডিজাইন তৈরির পরিকল্পনা নেনপ্রথমে প্রায় আড়াই মিটার দূরত্বে লাগান দুটি সিকামের গাছএরপর তিনি গাছ দুটির কাণ্ডের উপরের দিকে ২০ সেন্টিমিটার জায়গার ছাল তুলে গাছ দুটিকে বাঁকিয়ে এনে বাকল তোলা অংশে জোড়া লাগিয়ে বেঁধে দেনকয়েক মাস পর দেখা যায় দু'পাওয়ালা একটি গাছ তৈরি হয়েছে তখন তিনি এই কাজ গুলো করতেন শখের বসে। তার এই কাজের কথা প্রাথমিক অবস্থায় তার পরিবার ও বন্ধুরা ছাড়া আর কেউ জানতো না। তিনি তার ডিজাইনটিকে প্রথমে কাগজে আঁকতেন এরপর সেটিকে গাছ দ্বারা গ্রাফটিং করতেন।


১৯৪৫ সালে তার কন্যা উইলমা এবং তার স্ত্রী ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা ক্রুজে ভ্রমণে যান। তারা সেখানে দেখতে পান মানুষ জন অর্থের বিনিময়ে একটি বিস্ময়কর স্থান দর্শন করছে। তারা বাড়ি ফিরে আসে এবং এরল্যান্ডসনকে জানায় তার গাছগুলোও একটি দর্শনীয় বিষয় হতে পারে। যেখানে লোকজন অর্থের বিনিময়ে দর্শন করবে। তাদের কথা শোনা মাত্রয় এরল্যান্ডসন রাজি হয়ে যান এবং স্কটস ভ্যালি ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা কেলারা ভ্যালি ও সমুদ্রের মাঝের রাস্তায় এক খন্ড জমি ক্রয় করেন। 


এরপর তিনি তার বাড়ি থেকে তার তৈরি করা গাছগুলো সেই জমিতে স্থানান্তর করেন। তিনি সেখানে একটি বাস্কেট ট্রি তৈরি করে সবাইকে হতবাক করে দেন। ১৯৪৭ সালের ০৪ জুন তিনি তান বাগানটির নাম দেন ট্রি সার্কাস। এরপর তিনি তার বাগানটি হরেক ডিজাইনের গাছে ভরে ফেলেন এবং বাগানটি দর্শনার্থীদের আগ্রহের বিষয় হয়ে দাড়ায়। সেখানে দর্শনার্থীদের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পেতে থাকে। ১৯৫৫ সালে বাগানটি থেকে ৩২১.২০ মার্কিন ডলার আয় হয়।

উদ্ভিদ বিজ্ঞানের ব্যবহারিক প্রয়োগে দক্ষ পরিচর্যা, নিপুণ ব্যবস্থাপনা, অধ্যবসায় এবং ধৈর্যকে পুঁজি হিসেবে কাজে লাগিয়ে তিনি এই বাগানে গড়ে তোলেন বিভিন্ন ডিজাইনের শত শত বৃক্ষ। তার বাগানে প্রবেশ করলে লোকজন গাছের শিল্প কর্ম দেখে হতভম্ব ও বিস্মিত হয়ে যেত। গাছ দিয়ে বানানো চেয়ার, দোলনা, টাওয়ার, মই, ঘর, মানবাকৃতি, জীব-জন্তু আকৃতি, অলংকার ও আসবাব আকৃতি সহ অসংখ্য বিভিন্ন দৃষ্টিনন্দন ডিজাইনের গাছ রয়েছে তার বাগানে। এরল্যান্ডসনের সর্বশ্রেষ্ঠ কীর্তি Magnificent Stained glass window। এই শিল্পকর্মটি তিনি সৃষ্টি করেছেন একসঙ্গে দশটি গাছ নিয়েএ গাছগুলোকে তিনি এমনভাবে প্লিচিং এবং সেলফ গ্রাফটিং করেছেন যে, দূর থেকে দেখলে মনে হয় অসংখ্য খুদে জানালা গাছের ওপর বসানো রয়েছে

১৯৬৩ সালে এরল্যান্ডসন তার বাগানটি ১২ হাজার মার্কিন ডলারে লারি ও প্যাগি থমসনের কাছে বিক্রয় করেন। লারি ও থমসন এরল্যান্ডসন এরল্যান্ডসনকে এই বাগানের কেয়ারটেকার নিয়োগ দান করেন।  ১৯৬৪ সালের ২৮ এপ্রিল এরল্যান্ডসন ক্যালিফোর্নিয়াতে মৃত্যুবরণ করেন ।

লারি ও থমসন এই বাগানের প্রসার বৃদ্ধি করেন এবং অনেকগুলো ডাইনোসর প্রজাতির গাছের শিল্পকর্ম যুক্ত করেন। যা দর্শনার্থীদের আরও মনোযোগ আকৃষ্ট করে। তারা সমগ্র বাগানটির নতুন নাম প্রদান করে দ্য লস্ট ওয়ার্ল্ড এবং এরল্যান্ডসনের তৈরি কৃত অংশের বাগানটির নতুন নাম দেন "The Enchanted Forest". দ্যা লস্ট ওয়ার্ল্ড উদ্বোধন করার আগে থমসন মৃত্যুবরণ করেন। থমসনের তিন সন্তান এই বাগানের কয়েক বছর দেখাশুনা করেন। ১৯৭৭ সালে রবার্ট এই বাগানটিকে বানিজ্যিকিকরণ করেন।

এরল্যান্ডসনের বাগানের অনেক মৃত গাছ এখন ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা ক্রুজে শিল্প ও ইতিহাস যাদুঘরে সংরক্ষিত রাখা হয়েছে। যার মধ্য থেকে একটি গাছ ২০০৫ সালের জাপান এক্সপোর জন্য ধার দেয়া হয়। এরল্যান্ডসন গাছ দিয়ে এমন সব জিনিস তৈরি করেছিলেন যে, তাকে গাছের যাদুকর বললেও ভুল হবে না।

কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.