Header Ads

পুরুষের ছদ্মবেশে ৫২ বছর এক নারী

মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব। মানুষের অপরূপ চেহারা বা অবয়ব থাকা সত্ত্বেও মানুষ বিভিন্ন প্রয়োজনে ছদ্মবেশ নিয়ে থাকে। বিভিন্ন কারণে মানুষ ছদ্মবেশ নিয়ে থাকলেও একটা বিষয়ে মানুষ সাধারণ ভাবে ছদ্মবেশ নিয়ে থাকে। আর সেটি হচ্ছে নিজের পরিচয় বা চেহারাকে গোপন করার জন্য। গোয়েন্দা, বড় সন্ত্রাসী, অপরাধীরা সাধারণত ছদ্মবেশ নিয়ে থাকে। তবে তারা দীর্ঘ সময় ধরে সাধারণত ছদ্মবেশ ধারণ করে থাকে না। পৃথিবীতে এমন কেউ কেউ আছে যারা ছদ্মবেশে কাটিয়ে দিয়েছে তাদের জীবনের অনেক সময়। যাদের মধ্যে অন্যতম একজন হচ্ছেন ড. জেমস ব্যারী।


অবাক করা ব্যাপার এই যে, এই ব্যক্তি তার জীবনের ৫২টি বছর কাটিয়েছেন ছদ্মবেশে। শুনলে আরও বিস্মিত হবেন যে, জেমস ব্যারী ছিলেন একজন মহিলা কিন্তু তিনি ৫২ বছর কাটিয়েছেন পুরুষের ছদ্মবেশে। আর এই দীর্ঘ সময় তিনি কাটিয়েছেন পুরুষ বেশে সেনাবাহিনীতে।

ব্যারীর জন্ম তারিখ নিয়ে বিভ্রান্তি থাকলেও ধারনা করা হয় তিনি ১৭৮৯ সালে আয়ারল্যান্ডে জন্ম গ্রহণ করেন। শৈশবে তার নাম ছিল মার্গারেট এন বুলকেলি। তার আরও একটি পরিচয় আছে। আর সেটি হচ্ছে তিনি ছিলেন স্কটল্যান্ডের ৎকালীন লর্ডের নাতনি। তিনি কেন ছদ্মবেশ ধারণ করে ছিলেন এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানা না গেলেও ছোটবেলায় তার জীবনে ঘটে যাওয়া একটি দুঃখজনক ঘটনা থেকেই তিনি ধরনের আত্মগোপন করে থাকার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। তিনি প্রতিজ্ঞা করেন যতদিন তিনি জীবিত থাকবেন ততদিন পুরুষের ছদ্মবেশে থাকবেন। তার সেই সিদ্ধান্ত মোতাবেক তিনি ১৮১৩ সালে নিজের নাম পরিচয় পরিবর্তন করে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীতে ডাক্তারি পেশায় চাকরি নেন। আর এ ভাবেই তিনি ছদ্মবেশে কাটিয়ে দেন ৫২টি বছর। 

ব্যারী ব্যক্তিগত জীবনে ছিলেন অবিবাহিত। স্বভাবের দিক দিয়ে তিনি ছিলেন ভয়ানক বদমেজাজি। সেনা সদস্য ছাড়াও তার রয়েছে বেশ কিছু পরিচয়। তিনি ছিলেন একজন বিখ্যাত ডাক্তার এবং একজন ভাল মুষ্টিযোদ্ধা। ১৮১২ সালে তিনি ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চিকিৎসা শাস্ত্রে ডিগ্রী অর্জন করেন। ১৮১৩ সালের ০২ জুলাই তিনি ইংল্যান্ডের বিখ্যাত রয়েল কলেজ অব সার্জনে চাকুরী গ্রহণ করেন এবং এই সময় থেকেই তিনি ছদ্মবেশ ধারণ করেন।

সেখান থেকেই তিনি টানা ৫২ বছর তার পরিচয় গোপন করে রেখেছিলেন। তিনি এমন ভাবে তার পরিচয় গোপন করে রেখেছিলেন যে, সেনাবাহিনীতে কোনও লোকই তার আসল পরিচয় সম্পর্কে জানতে পারিনি। এমনকি তার ব্যক্তিগত ভৃত্য যে তার সাথে ৫০ বছর সময় কাটিয়েছে সেও কখনও তার আসল পরিচয় জানতে পারিনি। 

তার সত্যিকার পরিচয় ধরা পড়ে  তার মৃত্যুর পর। মৃত্যুর পরই সবাই জানতে পারে ডা. জেমস ব্যারী পুরুষ ছিলেন না, তিনি ছিলেন একজন নারী। ১৮৬৫ সালের ২৫ জুলাই তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

৩টি মন্তব্য:

  1. এনায়েতুর রহমান১১ ডিসেম্বর, ২০১১ ৩:১৯ PM

    খুবই সুন্দর একটি ওয়েব সাইট। লেখাটি খুব সুন্দর হয়েছে। এমন একটি ওয়েব সাইটের জন্য ধন্যবাদ।

    উত্তরমুছুন
  2. asole sei somoye mohila doctor sunle take nana sasti theke suru kore manosik sasti pete hoto. tai tini purus seje thakten. ek ti bisoy lakkho korun ei mohilar age r kono mohila doctor chilo na. tini-i prothonm mohila doctor in history of that place.

    উত্তরমুছুন
  3. wassup rakomari.blogspot.com blogger discovered your website via Google but it was hard to find and I see you could have more visitors because there are not so many comments yet. I have discovered site which offer to dramatically increase traffic to your blog http://xrumerservice.org they claim they managed to get close to 1000 visitors/day using their services you could also get lot more targeted traffic from search engines as you have now. I used their services and got significantly more visitors to my site. Hope this helps :) They offer most cost effective backlinks Take care. Jason

    উত্তরমুছুন

Blogger দ্বারা পরিচালিত.