Header Ads

বাবা হবার আজব শখ যে ব্যক্তির

প্রত্যেক মানুষের ভিন্ন ভিন্ন শখ থাকে। কারো শখ বাগান করা, কারো ডাক টিকিট সংগ্রহ করা আবার কারো শখ লেখালেখি করা। তবে পৃথিবীতে এমন কিছু ব্যক্তি আছে যাদের শখ একটু ভিন্ন ধরনের। উদাহরণ হিসেবে যেমন আমরা বলতে পারি নানু রাম জোগীর শখের কথা। কি তার সেই ভিন্ন ধরনের শখ? তার সেই শখের কথা শুনলে হয়তো আপনি বলবেন এটা কি কোনও শখ হলো! আবার অনেকে বলতে পারেন বুড়ো বয়েসে ভীমরতি। শখ যাই হোক তিনি কিন্তু আবার তার এই শখ দ্বারা বিশ্ব রেকর্ডও করেছিলেন।

এবার তাহলে জানা যাক তার শখ ও রেকর্ড সম্পর্কে। হ্যাঁ, তার শখ হচ্ছে সন্তানের বাবা হওয়া এবং তিনি ২০০৭ সালে ৯০ বছর বয়েসে তার ২১ তম সন্তানের জন্ম দিয়ে সবচেয়ে বেশী বয়েসে বাবা হওয়ার বিশ্ব রেকর্ড করেছিলেন। অবশ্যই এটা একটা আজব রেকর্ড আর এ রেকর্ড গড়ে সবাইকে চমকে দিয়েছিলেন এই মানুষটি। তার বয়স খুব একটা বেশি না হলেও কারও থেকে কমও নয়

পৃথিবীর সবচেয়ে বয়স্ক বাবা হওয়ার রেকর্ড গড়েছিলেন নানু রাম জোগী ২০০৭ সালে। তার বাড়ি ভারতের রাজস্থান প্রদেশের পানচেমলি গ্রামে। তিনি পেশায় একজন কৃষক। ৯০ বছর বয়সে তিনি সন্তানের বাবা হয়ে এই বিরল রেকর্ডটির মালিক হয়েছিলেন। এ পর্যন্ত তিনি ৪টি বিয়ে করেছেনআর তার এ পর্যন্ত সন্তানের সংখ্যা মোট ২১এর মধ্যে ছেলের সংখ্যা ১২ জন, মেয়ের সংখ্যা ৯ জন এবং নাতি-নাতনির সংখ্যা ২০ জন। সর্বশেষ যে সন্তান জন্ম হওয়ার পর নানু রাম জোগী এই রেকর্ড গড়েন সেটি ছিল একটি কন্যা সন্তান। ২০০৭ সালে তিনি এক কন্যা সন্তানের বাবা হয়ে এই রেকর্ড গড়েছিলেন। 

অবশ্য পরে রামাজিত রাঘব নামক আরেক ভারতীয় ৯৬ বছর বয়েসে সন্তানের বাবা হয়ে তার রেকর্ড ভেঙ্গে ফেলেছেন। নানু রামের রেকর্ড করা সেই কন্যা সন্তানের নাম ছিল গিরিজা রাজকুমারীসবচেয়ে মজার ব্যাপার এই যে, নানু রাম জোগীর ইচ্ছা, সে তার বয়স ১০০ বছর না হওয়া পর্যন্ত সন্তান নিতেই থাকবেন নানু রাম জোগীর প্রথম কন্যা সন্তান জন্ম নেয় ১৯৪৩ সালেতার নাম সীতা দেবীতার প্রথম পুত্র সন্তান ১৪ বছর আগে মারা গেছেন। নানু রামের সর্বশেষ স্ত্রীর নাম সাবুরি। শুধু তার গর্ভেই জন্ম গ্রহণ করেছে সাতটি সন্তান। নানু রাম জোগী তার ছেলেমেয়ে আর নাতি-নাতনিদের নিয়ে এক সঙ্গেই থাকেন। তার পরিবারের সদস্য সংখ্যা বর্তমানে প্রায় ১১২ জন। পরিবারের সদস্য বেশি হওয়ায় তারা পাশাপাশি ৬টি বাড়িতে সবাই মিলে বসবাস করেন

নানু রাম জোগীর বয়স এখন ৯৪ হলেও তিনি বলেন, তিনি এখনো বৃদ্ধ হননিকারণ তার মাঝে তিনি এখনও তারুণ্য দেখতে পাননানু রাম জোগী বর্তমানে কৃষিকাজ করেন। তিনি তার সন্তান জন্মের ক্ষমতা সম্পর্কে বলেন, তিনি বন্য জীব-জন্তুর মাংস প্রচুর পরিমাণে আহার করেন। তিনি বনে শিকারে যান এবং সেখান থেকে মাংস সংগ্রহ করেন। 


তার তথ্য অনুযায়ী সম্ভবত ভাল ভাল খাবার ও প্রচুর পরিমাণে মাংস গ্রহণের ফলে তার বাবা হওয়ার ক্ষমতা এখনও হারিয়ে যায়নিনানু রাম জোগী বলেন, তিনি আরও অনেক দিন বাঁচবেনআর তার ছেলের সঙ্গে মজা করবেন। তার স্বপ্ন যদি সত্যি হয় তবে হয়তো তিনি তার নিজের রেকর্ডকে আরও বৃদ্ধি করতে পারবেন।

কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.